রবিবার, জুন ১৬, ২০২৪
Homeফিচারহুসেইন মুহম্মদ এরশাদ আমলে কেউ না খেয়ে থাকেননি: ডা. জাফরুল্লাহ

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ আমলে কেউ না খেয়ে থাকেননি: ডা. জাফরুল্লাহ

জাতীয়-পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি “হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ” আপাদ*মস্তক ভদ্রলোক ও বুদ্ধিমান ছিলেন বলে জানিয়েছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী (Dr. Jafrullah Chowdhury)।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, এরশাদ আপাদমস্তক ভদ্রলোক ও টেলেন্ট ছিলেন। উনার দৃষ্টি ছিল প্রসারিত। ফেব্রুয়ারি (February) মাসে তার অসামান্য অবদান ছিল। উনি নিয়ম করেছিলেন সাইন বোর্ড বাংলায় হতে হবে, আদালতের রায় বাংলায় লিখতে হবে। উনার আমলে কেউ না খেয়ে থাকেন নাই।

বুধবার (20 মার্চ)এরশাদের জন্মদিনে ‘পল্লী বন্ধু’ পদক প্রদান অনুষ্ঠানে বক্তৃতা কালে তিনি এসব কথা বলেন। রাজধানীর একটি হোটেলে রাতে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে জাতীয় পার্টি (JPA)। পার্টির চেয়ারম্যান জিএম (GM Quader) কাদের মনোনীত আট বিশিষ্টজনকে পদক তুলে দেন। ১ম বারের মতো দেওয়া ‘পল্লী বন্ধু’ পদক পেয়েছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীও। তিনি স্বাস্থ্য খাতে অবদানের জন্য এ পদক পেয়েছেন।

পল্লী-বন্ধু পদক পাওয়া অন্য ৭ জন হলেন- সাহিত্যে কবি “ফজল সাহাবুদ্দিন” (মরণোত্তর), কৃষিতে বিশিষ্ট কৃষি সাংবাদিক ও গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব “শাইখ সিরাজ”, সংগীতে প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী “এন্ড্রু কিশোর” (মরণোত্তর), শিক্ষায় বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. “নাজমুল আহসান কলিম উল্লাহ”, গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নে পরিকল্পনাবিদ ইঞ্জিনিয়ার “কামরুল ইসলাম সিদ্দিক” (মরণোত্তর), ক্রীড়ায় বিশিষ্ট ক্রীড়াবিদ “গোলাম সরোয়ার টিপু” এবং শিল্পে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বিশিষ্ট শিল্পপতি “আব্দুল ওয়াহেদ বাবুল”।
পল্লী-বন্ধু পদক প্রাপ্তদের একটি ক্রেস্ট, সম্মাননা পত্র এবং এক লাখ টাকা করে সম্মানি দেওয়া হয়। এছাড়া তাদেরকে উত্তরীয় পরিয়ে সম্মানিত করা হয়।

আরও পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ খবর

জনপ্রিয়