সুনামগঞ্জে স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন।

0
347

জেলা শহর সুনামগঞ্জের পশ্চিম তেঘরিয়া এলাকায় রিপা বেগম (৩০) নামে এক নারী কথিত স্বামীকে নিয়ে ভাড়া বাসায় বসবাস শুরু করার ১৫ দিনের মাথায় আসল স্বামীর হাতে খুনহন নকল স্বামী ।

গতকল্য সোবার বেলা ১১টার দিকে সুনাম গঞ্জের পৌর শহরের পশ্চিম তেঘরিয়া আবাসিক এলাকায় এ মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটে। ঘটনার পর শহরের পুরাতন বাসস্টেশন এলাকা থেকে নিহতের স্বামী আবদুল হামিদ মিল্টনকে (৪২) আটক করেছে র‌্যাব বাহিনী।

মিল্টন পিতা লেম্বু মিয়া, সদর উপজেলার সুরমা ইউনিয়নে মঈনপুর গ্রামের বাসিন্দা বলে জানাযায় । আসল স্বামীর হাতে স্ত্রী খুনের এই মর্মান্তিক ঘটনাটি নিশ্চিত করেছেন নিহতের মেয়েসহ আশ পাশের প্রতিবেশীরা। পুলিশ বলছে পারিবারিক কলহের জেরে স্বামীর হাতে ওই নারী খুন হতে পারেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন তারা।।

পুলিশ ও “প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান,গত ১৫ দিন আগে স্বামী আবদুল হামিদের সঙ্গে ঝগড়াঝাটি করে বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসেন নিহত রিপা বেগম।, তার পর পৌর শহরের পশ্চিম তেঘরিয়া এলাকায় সদর উপজেলার মঙ্গলকাটা গ্রামের বাসিন্দা গুলজার আহমদ নামের এক যুবককে সাথে নিয়ে স্বামী পরিচয় দিয়ে বসবাস শুরু করেন তিনি।

স্ত্রীর আবাসস্থল অবস্থান জানতে পেরে আব্দুল হামিদ মিল্টন গতকাল বেলা ১১টার সময় এসে সোজা ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়াঝাটি আরম্ভ করেন। এর একপর্যায়ে দা দিয়ে মাথায় আঘাত করলে চিৎকার দিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পরেন স্ত্রী রিপা বেগম।।

রিপা বেগমের চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা এসে দরজাটি বন্ধ পান এবং খুলতে বলেন, এসময় প্রতিবেশীর উপস্থিতি টের পেয়ে আব্দুল হামিদ মিল্টন দরজা খুলে কৌশলে পালিয়ে যান।।

প্রতিবেশীরা আহত রিপা বেগমকে সুনামগঞ্জ শহরের ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।।

নিহতের মেয়ে ফাহমিদা জাহান বলেন, আমি পাশের ঘরে বসে টিভি দেখতেছিলাম, হঠাৎ বাবা এসে ঘরের দরজা লাগিয়ে মায়ের সঙ্গে ঝগড়া শুরু করেদেন । এসম মায়ের আত্ব চিৎকার শুনে পাশের ঘরের খালাসহ আমরা সবাই দৌড়ে আসি এবংদরজা খোলার জন্য অনুরোধ করি তারপর বাবা দরজা খুলে দৌড়ে পালিয়ে যায়।

ঘরে ঢুকে দেখি রক্তাক্ত অবস্থায় মা মাটিতেই পড়ে ছিলো।
আরিফুর রহমান”বাসার মালিক” বলেন, ‘১৫ দিন আগে রিপা বেগম আমার বাসা ভাড়া নেন। তিনি জানান তার স্বামী গুলজার আহমদ ও এক মেয়েকে নিয়ে থাকবেন, তাই তাদেরকে আমরা বাসা ভাড়া দিই। কিন্তু আজকে হঠাৎ তার প্রথম স্বামী এসে তাকে দা দিয়ে কুপিয়ে খুন করে পালিয়ে যান। আমি বিষয়টি ৯৯৯-এ ফোন দিয়ে পুলিশকে অবহিত করি।

সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইখতিয়ার উদ্দিন”চৌধুরী জানান, পারিবারিক কলহের জেরে স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন হয়েথাকতে পারেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করাযায়। অভিযুক্ত স্বামীকে র‌্যাব বাহিনী আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে, এবং নিহত রিপা বেগমের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here