রবিবার, জুন ১৬, ২০২৪
Homeঅর্থ ও বাণিজ্যচট্টগ্রাম কাস্টমসে শুল্কায়নে জালিয়াতি রোধে ‘ওটিপি’

চট্টগ্রাম কাস্টমসে শুল্কায়নে জালিয়াতি রোধে ‘ওটিপি’

পণ্য শুল্কায়ন পদ্ধতিতে জালিয়াতি-প্রতারণা ঠেকাতে বিশেষ পদক্ষেপ নিয়েছে রাজস্ব আয়ে দেশের শীর্ষ প্রতিষ্ঠান চট্টগ্রাম কাস্টম হাউস। নতুন পদ্ধতিতে কাস্টমস ব্যবহারকারীদের অনলাইন পদ্ধতিতে লগ ইন করতে হলে বাধ্যতামূলক ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড বা ওটিপি দিতে হবে। এতে জালিয়াতি ও প্রতারণা রোধ করে রাজস্ব সুরক্ষা সম্ভব বলে মনে করছে কাস্টমস।

এর আগে গত ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে নতুন এই পদ্ধতি সবাইকে শেখাতে পরীক্ষামূলকভাবে চালু করা হয়েছিল। প্রায় তিন মাস পর আজ ১৫ ডিসেম্বর এই পদ্ধতিতে লগ ইন বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, চট্টগ্রাম কাস্টমসে আমদানি-রপ্তানি পণ্য শুল্কায়নে অনলাইন পদ্ধতি ‘অ্যাসাইকুডা ওয়ার্ল্ড’ সিস্টেমে এত দিন লগ ইন করতে হলে শুধু আইডি ও পাসওয়ার্ড দিলেই প্রবেশের সুযোগ পেতেন ব্যবহারকারীরা। এতে করে একজনের লগ ইন পাসওয়ার্ড জেনে অন্যজন প্রতারণার সুযোগ পেত। এমনকি কাস্টমস কর্মকর্তার লগ ইন পাসওয়ার্ড হ্যাক করে অনিয়ম-প্রতারণা হচ্ছিল। এর মাধ্যমে বড় ধরনের জালিয়াতির ঘটনাও উদঘাটিত হয় কাস্টমসে। সেই প্রতারণা বন্ধ করে একটি সুরক্ষিত পদ্ধতি চালু করতে প্রবেশের আগেই নিবন্ধিত মোবাইল নম্বরে দেওয়া হচ্ছে ‘ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড বা ওটিপি’।

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম কাস্টমসের যুগ্ম কমিশনার তোফায়েল আহমেদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘অ্যাসাইকুডা ওয়ার্ল্ড সিস্টেস সুরক্ষিত রাখতে এমন পরিকল্পনা আগে থেকেই ছিল। কিন্তু এটি এমন সময়ে চালু হচ্ছে যখন কাস্টমসে জালিয়াতির বেশ কটি ঘটনা কাছাকাছি সময়ে উদঘাটিত হয়েছে। এতে করে সিস্টেমে ডাবল চেকআপ নিশ্চিত হবে। তখন কেউ বলতে পারবে না যে আমার আইডি দিয়ে আরেকজন লগ ইন করে জালিয়াতি-প্রতারণা করেছে। এতে সুরক্ষা পাবেন ব্যবহারকারীরা। রাজস্ব আয়ে প্রতারণা কমে যাবে। ডিজিটাল সুরক্ষা বাড়াতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের নির্দেশে এই পদক্ষেপ।

জানা গেছে, চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের স্বয়ংক্রিয় শুল্কায়ন পদ্ধতি অর্থাৎ অনলাইন সিস্টেম হচ্ছে অ্যাসাইকুডা ওয়ার্ল্ড। বিশ্বের সব কাস্টমস স্টেশন একই সিস্টেমে কাজ করছে। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড গত ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে অ্যাসাইকুডা ওয়ার্ল্ড সিস্টেমে নিরাপত্তা বাড়াতে ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড (ওটিপি) ব্যবস্থা পরীক্ষামূলকভাবে চালু করেছিল। অ্যাসাইকুডা ডাটাবেইসে ব্যবহারকারীদের মোবাইল নম্বর ও ই-মেইল দিতে হবে। মোবাইল ও ই-মেইলে পাঠানো ছয় ডিজিটের পাসওয়ার্ড দিয়ে সিস্টেমটি ব্যবহার করা যাবে।

অ্যাসাইকুডা ওয়ার্ল্ডের সবচেয়ে বড় ব্যবহারকারী হচ্ছেন দুই হাজার ৮৫০ জন সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট, তাঁরাই মূলত আমদানি-রপ্তানির মূল কাজটি কাস্টমসে করে থাকেন।

চট্টগ্রাম সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানি রিগ্যান বলেন, ‘স্বচ্ছতার সঙ্গে যাঁরা ব্যবসা করতে চান, তাঁদের জন্য এই পদ্ধতি অনেক বেশি সহায়ক এবং নিরাপদ হবে। আমরা নিজের অফিসের বিশ্বস্ত কাউকে দিয়ে লগ ইন কাজটি করে থাকি। কিন্তু সেটিও শতভাগ সুরক্ষা দেবে এই পদক্ষেপ, এটি এরই মধ্যে প্রমাণিত হয়েছে। ফলে এখানে ভালো ব্যবসায়ীদের প্রশংসা না করার কোনো সুযোগ নেই।’

উল্লেখ্য, চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসে দিনে গড়ে ১০০ কোটি টাকার বেশি রাজস্ব আয় হয়। এই রাজস্ব আয় করতে গিয়ে হয় বিশাল কর্মযজ্ঞ। এতে জালিয়াতির সুযোগ থেকেই যায়। নতুন এই পদ্ধতি কাস্টমসের কাজকেও সুরক্ষা দেবে। জালিয়াতি ধরা পড়ার পর দায় এড়ানোর কোনো সুযোগ থাকবে না।

আরও পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ খবর

জনপ্রিয়